গেমিং ল্যাপটপ ওয়ালটন

নতুন মডেলের গেমিং ল্যাপটপ বাজারে আনছে ওয়ালটন

নতুন মডেলের অত্যাধুনিক প্রযুক্তির গেমিং ল্যাপটপ বাজারে ছাড়লো ওয়ালটন। ওয়াক্সজ্যাম্বো সিরিজের ল্যাপটপটির মডেল ডব্লিউডব্লিউজিএল৭১০এইচ (ডডএখ৭১০ঐ)। এতে ব্যবহৃত হয়েছে ইন্টেলের দশম প্রজন্মের প্রসেসর, এনভিডিয়া এর ৬ গিগাবাইট জিফোর্স জিটিএক্স ৩০৬০ গ্রাফিক্স কার্ড, ১৬ জিবি র‌্যাম, ১ টেরাবাইট এনভিএমই সলিড স্টেট ড্রাইভসহ অসংখ্য অত্যাধুনিক ফিচার। সাশ্রয়ী মূল্যের মাল্টিটাস্কিং সুবিধা এবং উন্নত ফিচারসমৃদ্ধ ওই ল্যাপটপটি ইতোমধ্যেই গেমারদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

 

 

ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং কম্পিউটার প্রোডাক্টের সিইও প্রকৌশলী লিয়াকত আলী জানান, যারা গেম খেলতে ভালোবাসেন তাদের জন্য বিশেষভাবে তৈরি হয়েছে ওয়ালটনের এই দশম জেনারেশন প্রসেসরের ল্যাপটপ। এছাড়াও গ্রাফিক্সের ভারী কাজ এবং ছবি বা ভিডিও এডিটিংয়ের জন্য আদর্শ এই ল্যাপটপ। দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা ও সেলস পয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে উচ্চমানের এই ল্যাপটপ। দাম ১৮৯,৯৫০ টাকা।

 

এদিকে ‘কোটি টাকার শিক্ষাবৃত্তি’ প্রকল্পের আওতায় ওয়ালটন ল্যাপটপ, কম্পিউটার, ট্যাবলেট পিসি, ডেক্সটপ কিংবা অল-ইন-ওয়ান কম্পিউটার কিনলেই ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য থাকছে ২ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত শিক্ষাবৃত্তি। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে জিরো ইন্টারেস্টে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধা।

 

জানা গেছে, ওয়াক্সজ্যাম্বো সিরিজের নতুন ওই গেমিং ল্যাপটপে ব্যবহার করা হয়েছে ১৫.৬ ইি র ফুল এইচডি ম্যাট আইপিএস এলইডি ব্যাকলিট ডিসপ্লে। এর রিফ্রেশ রেট ১৪৪ হার্জ হওয়ায় গেমারদের কাছে এটি বিশেষ আকর্ষণীয়। ল্যাপটপটির পর্দার রেজ্যুলেশন ১৯২০ বাই ১০৮০ পিক্সেল। এর কালার কোয়ালিটি ৭২% এনটিএসসি। ফলে এতে স্পষ্ট ও প্রাণবন্ত ছবি দেখার অভিজ্ঞতা মিলবে। গেম খেলা, কাজ করা বা মুভি দেখায় পাওয়া যাবে অসাধারণ অনুভূতি। এর ম্যাট ডিসপ্লে প্যানেল আলোর প্রতিফলন রোধ করবে। যা চোখকে আরাম দেবে। দীর্ঘক্ষণ গেম খেলা বা কাজ করায় চোখের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়বে না।

 

এই ল্যাপটপের উচ্চগতি নিশ্চিতে আছে ইন্টেলের দশম প্রজন্মের ২.২০ গিগাহার্টস ক্লকরেটের কোর আই সেভেন ১০৮৭০এইচ ৬-কোর প্রসেসর। মেমোরি ডিভাইস হিসেবে রয়েছে ১৬ গিগাবাইট ডিডিআর৪ র‌্যাম যা ৩২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। প্রয়োজনীয় গেম, সফটওয়ার, ডকুমেন্ট, মুভি ইত্যাদি সংরক্ষণের জন্য আছে এনভিএমই পিসিআইই এম.টু ১ টেরাবাইট সলিড স্টেট ড্রাইভ।

 

শক্তিশালী ও ভারী গেম অনায়াসে চলার জন্য এই ল্যাপটপে গ্রাফিক্স হিসেবে আছে এনভিডিয়া জিফোর্স আরটিএক্স ৩০৬০ মডেলের ৬ গিগাবাইট জিডিডিআর৬ ভিডিও র‌্যাম। পাশাপাশি রয়েছে বিল্টইন ইন্টেল ইউএইচডি গ্রাফিক্স ৬৩০। ফলে গেম খেলার সময় অসাধারণ অভিজ্ঞতা মিলবে। ছবি বা ভিডিও এডিটিং কাজের গ্রাফিক্যাল কালার ও মানও হবে অনেক বেশি।

 

আকর্ষণীয় গেমিং আবহ তৈরিতে এই ল্যাপটপে আছে হাই ডেফিনেশন অডিও। বিল্ট ইন অ্যারে মাইক্রোফোন। দুইটি ২ ওয়াটের স্পিকার থাকায় স্পষ্ট ও জোড়ালো শব্দ পাওয়া যাবে। সাউন্ড ব্লাস্টার অ্যাটলাস থাকায় আলাদা স্পিকার ব্যবহারে শব্দের মান অপরিবর্তিত থাকবে।

 

দীর্ঘক্ষণ পাওয়ার ব্যাকআপের নিশ্চয়তায় এই ল্যাপটপে ব্যবহৃত হয়েছে শক্তিশালী ৩ সেলের স্মার্ট লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি। যা ৮ ঘন্টারও বেশি সময় পাওয়ার ব্যাক-আপ দিতে সমর্থ।

ল্যাপটপটির অন্যান্য বিশেষ ফিচারের মধ্যে আছে মাল্টি কালারের আরজিবি লাইট সমৃদ্ধ ফুল সাইজ কি-বোর্ড। যা ব্যবহারকারী পছন্দমতো পরিবর্তন করতে পারবেন। আরজিবি লাইটের বিশেষ সুবিধা হচ্ছে কম আলোতেও কাজ করা বা গেম খেলার সময় স্বচ্ছন্দে কিবোর্ড ব্যবহার করা যায়।

 

স্পষ্ট ভিডিও কল ও আকর্ষণীয় সেলফির জন্য রয়েছে ১ মেগা পিক্সেলের এইচডি ক্যামেরা। কানেকটিভিটি ফিচারের মধ্যে আছে ৩টি ইউএসবি ৩.২ টাইপ এ পোর্ট ও পাওয়ারড পোর্ট, ১টি থান্ডারবোল্ড ৩ পোর্ট, ১টি মিনি ডিসপ্লে পোর্ট, এইচডিএমআই, ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াইফাই, ব্লুটুথ ৫.১, ল্যান ইত্যাদি।

 

ফুল মেটাল হাউজিংয়ের আকর্ষণীয় ডিজাইনের ল্যাপটপটি বেশ হালকা। ব্যাটারিসহ ওজন মাত্র ১.৯ কেজি। ফলে যে কোনো স্থানে সহজেই বহন করা যাবে। এর দৈর্ঘ্য ৩৫৭.৫ মিমি, ২৩৮ মিমি চওড়া এবং পুরুত্ব ১৯.৮ মিমি।

 

ওয়াক্সজ্যাম্বো সিরিজের এই ল্যাপটপে গ্রাহকরা ওয়ালটন সার্ভিস সেন্টার থেকে ২ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা পাবেন।

Related Posts

One thought on “নতুন মডেলের গেমিং ল্যাপটপ বাজারে আনছে ওয়ালটন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *