Seo করে কত টাকা আয় করা যায় | Seo এর কাজ শেখার উপায়

Seo করে কত টাকা আয় করা যায় | Seo এর কাজ শেখার উপায়

Seo করে কত টাকা আয় করা যায় | Seo এর কাজ শেখার উপায় 

 

SEO সম্পর্কিত লেখায় সবাইকে স্বাগতম।বাংলা ভাষায় SEO সম্পর্কিত খুব বেশি কোর্স নেই,যেগুলো রয়েছে সেগুলোর

মধ্যে বেশিরভাগ পেইড ভার্সন। তা সবার পক্ষে করা সম্ভব না তাই আমরা আমাদের এর পক্ষ থেকে SEO নিয়ে একটি full course চালু

করেছি।এডভান্স লেভেলের SEO Bangla Tutorial নিয়ে এই Full Course

টি পাচ্ছেন সম্পূর্ণ ফ্রি আমাদের কাছে। আজকের এ পাঠে একেবারে খুঁটিনাটি থেকে শুরু

করে beginner to to advance সব ধরনের SEO Method শেখানো হবে ।আশা করি মনোযোগ সহকারে সম্পন্ন আর্টিকেলটি পড়লে এস. ই. ও সম্পর্কে ধারনা জন্মাবে ।

 

WHAT IS SEO?

SEO এর meaning হচ্ছে Search Engine Optimization. এই উপায়টি একটি ওয়েবসাইট অথবা একটি আর্টিকেল অথবা একটি পেজকে গুগল অথবা যে কোন সার্চ ইঞ্জিন এর মাধ্যমে প্রথম পৃষ্ঠায় রেঙ্ক করে ওয়েবসাইট SEO

করা থাকলেsearch engine এ তথ্য খোজ করলে আমাদের সাইটের কন্টেন্ট খুজে

পেতে সহজ হয়, অর্থাৎ সার্চ ইঞ্জিনের অ্যালগরিদম রোবট আমাদের কনটেন্টই খুব সহজে খুজে পেতে পারে এবং সার্চ ইঞ্জিনের ফাস্ট এই যে প্রদর্শন করতে পারে। এতে করে সাইটে ভিসিটর বাড়ে। যদি কোন প্রোডাক্ট সার্ভিস কোম্পানি বা ওয়েবসাইট হয়ে থাকে তাহলে অত্যাধিক পরিমাণে ভিজিটর এবং ক্রেতা পাওয়া যাবে। Good SEO দ্বারা সার্চ ইঞ্জিনগুলোর প্রথম পেজে আমাদের সাইটের কন্টেন্টগুলো রেংক করা সম্ভব হয়। এজন্য ওয়েবসাইটকে SEO করা শেখাটা জরুরি। এসইও করার মাধ্যমে আপনি দুইটা জিনিস খুব ভালোভাবে আয়ত্ত করতে পারবেন যেমন, Seo করে কত টাকা আয় করা যায় | Seo এর কাজ শেখার উপায়

Other seen

আমরা যেকোন কিছু সার্চ ইঞ্জিন যেমন গুগলে কি-ওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করি। অর্থাৎ কোন কিছু খোঁজার জন্য আমরা কিছু একটা লিখে যখন গুগলের সার্চ বক্সে সার্চ করি সেটাই keyword। তাই SEOএর প্রথম শর্ত হচ্ছে আমরা যে সাইট বিল্ড করব

ঐটার জন্য ভাল কি-ওয়ার্ড নির্বাচন করা শান্ত এবং প্রথম পদক্ষেপ। আর গুগলে সাইটকে প্রথমে পেতে হলে সাইটের ভ্যালু খুবই দরকার , অর্থাৎ সাইটের পারফরম্যান্স যে সাইটের ব্যাকলিংক বেশি সে সাইট তাড়াতাড়ি রেংক করবে, এবং যে সাইটে স্পিরিট বেশি অর্থাৎ লোডিং নেওয়ার সময়টা খুবই কম সেই ওয়েবসাইট খুব দ্রুত রেঙ্ককরে । আশা করি SEO এর ব্যাপারটা খুব সহজ ভাষায় বুঝাতে বুঝতে পেরেছেন। এ কোর্সে SEO বিষয়ে নিয়মকানুনসহ নিখুঁতভাবে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করা হবে এবং কিভাবে রেংক করানো হয় তা দেখানো হবে।মোটকথা,সাইটে ভিজিটির বাড়াতে অত্যাবশ্যকীয় গুরুত্বপূর্ণ কাজটি হচ্ছে SEO করা, এবং ব্যাকলিংক সাইটের পারফরম্যান্স মানি ইসপিরিট ভালো রাখা। একটি সাইটের এসইও করার জন্য ব্যাকলিংক সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাকলিংক এবং একটি সাইট পরিপূর্ণ অপটিমাইজ পারফরম্যান্স তৈরি করা থাকলে টি-শার্ট থেকে অনেক ভাবে মুনাফা অর্জন করা যায় যেমন, Seo করে কত টাকা আয় করা যায় | Seo এর কাজ শেখার উপায় এই প্রশ্নগুলোর উত্তর পেয়ে যাবেন।

 

কারণটা ব্যাখ্যা করছি- কিছুক্ষেত্রে দেখা যায়,খুব ভাল কন্টেন্ট থাকা সত্ত্বেও Visitor আসে না। এটা মুলত আপনার সাইটের SEO না করে থাকার জন্য। কারণ আপনার সাইটে একজন ভিজিটর আসবে গুগল সার্চের মাধ্যমে আর গুগল সার্চের ফাস্ট পেজে আসার জন্য অবশ্যই এসইও করতে হবে। আর এসইও পরিপূর্ণভাবে করার জন্য কীওয়ার্ড নির্বাচন করা খুবই জরুরী। বেশি বেশি ভিসিটর পেতে হলে আপনার সাইটের SEO করা লাগবে।এছাড়া খেয়াল রাখবেন যে, অনেকগুলো

এলোমেলো টপিক নিয়ে না লিখে নির্দিষ্ট কিছু বিষয় নিয়ে blogging করুন।তাই একটা সাজেশন হচ্ছে- ভাল tofic,ভাল Keyword

রিসর্চ করে ব্লগিং করুন। পোস্টে লিংক এলোমেলো না করে পোস্টের সাথে মিল রেখে সিরিয়াল অনুযায়ী দেবেন। তাহলে খুব দ্রুত রেংকিং করতে পারবেন ।

 

প্রকারভেদঃ

See more post

SEO প্রধানত ২ ধরনের হয়ে থাকে। যথাঃ

(১) Website এর Inside এ বা ওয়েবসাইট এর ভিতরে যে SEO গুলো করা হয় সেগুলোই হচ্ছে-অন পেইজ এসইও(On Page SEO).

On Page SEO হোয়াইট হ্যাট এসইওর একটি অংশ মাত্র এই অন পেইজ অপ্টিমাইজেশন ওয়েবসাইট এর ফলাফলকে Search

Engine এ আসতে সাহায্য করে থাকে ।

ব্যাবহার করা হয় নিচের,, পয়েন্ট গুলো On Page SEO অপ্টিমাইজেশনের জন্য,,

 Keyword Analysis

 Competitor Analysis

 Title Optimization

 Meta Description Optimization

 Heading (H 1, H 2, H 3, H 4, H 5, H 6)

 Blod

 Hyperlink

 Alt Text

 Permalink/ Slug/ URL Optimization

 Image Optimization

 Css & JavaScript Optimization

 Speed Optimization

 Internal Linking

 External Linking

 Sitemap

 Robots.txt

 Search Console Setup

 Google Analytics

 

(২) আর, website এর বাইরে যে SEO করা হয় সেগুলোই

হচ্ছে-Off Page SEO

Off Page SEO হ’ল হোয়াইট হ্যাট এসইওর একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গমাত্র,, এটি অন পেইজ এসইওর চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ। কারণ লিঙ্ক

বিল্ডিং অফ পেইজ এর প্রধান অংশ, যা যেকোনো সাইটকে রেংক করতে সাহায্য করে থাকে ।

অফ পেইজ পেইজ SEO অধীনে ব্যবহৃত কৌশলগুলি হ’ল –

 Back linking

 

 Directory Submission

 Blogging

 Social Bookmarking

 Forum Posting

 Blog Commenting

 Photo Sharing

 Video Marketing

 Local Listing

 Article / PDF Submission

 Question-answer site

 Business Reviews

 Press Release

 CSS Submission

 

এছাড়াও,

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন ৩টি ভাগে বিভক্ত।

1. White Hat SEO

2. Black Hat SEO

3. Grey Hat SEO

 White Hat SEO?

White Hat SEO হল সার্চ ইঞ্জিনের গাইডলাইন (প্রধানত Google) অনুযায়ী ওয়েবসাইটটিকে অপ্টিমাইজ করা।

 

 এটি Organic SEO হিসাবে বিবেচিত হয়।

 ব্যবহৃত কৌশলগুলি হল On Page Optimigetion and Off Page Optimigetion.

 এই কৌশলটি Search ইঞ্জিনগুলি গ্রহণ করে।

সার্চ ইঞ্জিনগুলি দ্বারা নিষিদ্ধ হওয়ার ঝুঁকি White Hat ব্যবহারকারী ওয়েবসাইটগুলির পক্ষে খুব কম থাকে।

 White Hat SEO ব্যবহার করা ওয়েবসাইটগুলির প্রভাব স্থির, ধীরে এবং দীর্ঘস্থায়ী আশা করা যায়।

 

 Black Hat SEO?

Black Hat SEO সার্চ ইঞ্জিনগুলির গাইডলাইনগুলোকে কাজে লাগায় এবং পেইজ এর রেঙ্কিং বাড়ানোর জন্য নেগেটিভ

পদ্ধতিগুলি ব্যবহার করে।

 

 এটি আনএথিকাল SEO হিসাবে বিবেচিত হয়।

 লিঙ্ক স্প্যাম, কীওয়ার্ড স্টাফিং, ক্লোকিং, হিডেন লিঙ্ক এবং টেক্সট কয়েকটি ব্ল্যাক হ্যাট SEO এর কৌশল।

 Black Hat SEO এর অধীনে ব্যবহৃত কৌশলগুলি সার্চ ইঞ্জিনগুলির নির্দেশিকাগুলির পরিপন্থী এবং তাই এগুলো নিষিদ্ধ বা

কালো তালিকাভুক্ত।

 Black Hat SEO ব্যবহার করে ওয়েবসাইটগুলি রেঙ্কিংয়ে দ্রুত বৃদ্ধি লাভ করে তবে এই পরিবর্তনটি অনাকাঙ্ক্ষিত হয়।

 Grey Hat SEO?

Grey Hat SEO হ’ল এসইও যা ঝুঁকি নেয় অর্থাত ব্ল্যাক হ্যাট এসইওর সীমানা নির্ধারণ করতে পারে এমন কৌশল ব্যবহার

করে।

 

 Grey Hat SEO কৌশলগুলির মধ্যে কিছু ক্ষেত্রে বৈধ এবং আবার কিছু অবৈধ।

 ডোরওয়ে পেইজএস, গেটওয়ে পেইজএস, ডুপলিকেট কন্টেন্ট এগুলো হ’ল Grey Hat SEO

 

Keyword Research

কীওয়ার্ড রির্সাচ হলো- User সার্চ ইঞ্জিনে তথ্য সন্ধানের জন্য যে ধরনের Word ব্যাবহার করে থাকে তা খুঁজে বের করাকে

কিওর্য়াড রির্সাচ বলে ।

 

Keyword অনেক কিছুর উপর ভিত্তি করে পরিবর্তিত হতে পারেঃ

 ওয়েবসাইট – পেইজ এঁর সংখ্যা, ওয়েবসাইট এঁর গুণগতমান এবং সামগ্রীর ধরণ ইত্যাদি।

 ওয়েবসাইটের উদ্দেশ্য – ব্র্যান্ড প্রচার করা, তথ্য সরবরাহ, বিক্রয় ইত্যাদি।

 টার্গেট অডিয়েন্স এর উপর।

 ইন্ডাস্ট্রি এবং প্রতিযোগিতা।ইত্যাদি আরও অনেক কিছু ।

 

 লক্ষ্য রাখতে হবে

Keyword Research এর ক্ষেত্রে –

 পেজের কিওয়ার্ডের সাথে যেন কন্টেন্টের মিল থাকে,

 কন্টেন্ট তথা কিওয়ার্ডের সাথে টাইটেল ট্যাগের মিল থাকতে হবে,

 ওয়েব পেজের কিওয়ার্ডের সাথে হেডিং ট্যাগগুলোর মিল থাকা ভাল,

 সাধারণ ভাবে সার্চেবল কিওয়ার্ড ব্যাবহার করাই ভাল,

 এইচটিএমএল ডকুমেন্টের নাম, কন্টেন্ট তথা কিওয়ার্ডের সাথে মিল রেখে তৈরি করাই সর্বোত্তম,

 

Google Webmaster Tool

SEO এর জন্য Google এর ওয়েবমাস্টার টুল একটি গুরুত্বপূর্ণ টুল। SEO করার জন্য Google ওয়েবমাস্টার টুল এর

ব্যাবহার জানা অনেকটা অপরিহার্য ব্যাপার।এখানে যেকোন ওয়েব সাইট যোগ করে দেয়া যায় একদম বিনামুল্যে। গুগলে ওয়েব

সাইটের পেজগুলি কিভাবে দেখাবে এ বিষয়ে গুগল ওয়েবমাস্টার টুল বিস্তারিত বর্ননা প্রদান করে এছাড়াও আরও অনেক কাজ

আছে নিচে এগুলো নিছে বিস্তারিত দেওয়া হলো-

 

http://www.google.com/webmasters/tools

প্রথমে এই ঠিকানায় যেতে হবে, এখানে গেলেই আপনার Gmail Account দিয়ে সাইন ইন করতে বলবে। আপনার যদি Gmail

Account না থাকে তাহলে একটা খুলে নিন কারন Gmail Account ছাড়া গুগল ওয়েবমাস্টার টুল এর এই সেবা (সম্পূর্ন

 

বিনামুল্যের) গ্রহন করতে পারবেন না। আর যদি থাকে তাহলে এখানে User Name এবং Password দিয়ে সাইন ইন করে

ভিতরে ঢুকুন।

এবার গুগল ওয়েবমাস্টার টুলে আপনি এক বা একাধিক সাইট যুক্ত করতে পারেন।এজন্য Add a Site নামের বাটনে ক্লিক করে

আগত বক্সে আপনি যে সাইটটি যোগ করতে চান তার নাম দিয়ে Continue বাটনে ক্লিক করুন।এবার Verify ownership

নামের একটি পেজ আসবে এখান থেকে গুগলকে বুঝাতে হবে যে, সাইটটির প্রকৃত মালিক আপনি। সাইটের মালিকানা প্রমান

করতে গুগল এখানে ৪টি পদ্ধতি অনুমোদন করে, আপনি যেকোন টি ব্যাবহার করে এটা প্রমান করতে পারবেন।

 

এরমধ্যে ১ম পদ্ধতিটি খুব সহজ, Upload an HTML file to your server এই চেকবক্সটি চেক করে একটু নিচে স্ক্রল করে

গিয়ে দেখুন একটা Html ভেরিফিকেশন কোড এর ডাউনলোড লিংক আছে, ছোট এই ফাইলটি ডাউনলোড করে আপনার সাইটের

রুট ফোল্ডারে আপলোড করুন। যদি C-Panel ব্যাবহার করেন তাহলে আপনার public_html এ ফাইলটি আপলোড করুন

এসে http://www.webschool.com/googlesomething.html এই ধরনের একটা লিংক আছে এখানে ক্লিক করে ফাইলটি

আপলোড নিশ্চিত করুন এবং শেষে verify বাটনে ক্লিক করে ভেরিফিকেশন সম্পূর্ণ করুন।

 

What is Search Engine:

বিভিন্ন ধরনের Program রয়েছে। এসব সার্চ ইঞ্জিন দ্বারা তথ্য খোজ করে থাকে এবং সার্চ ইঞ্জিনগুলো user কে তথ্যটি প্রদর্শন

করে।

Top 10 hottest program গুলো হচ্ছেঃ

 https://www.google.com/

 https://www.bing.com/

 https://search.yahoo.com/

 https://www.baidu.com/

 https://yandex.com/

 https://duckduckgo.com/?va=z&t=hk

 https://www.ask.com/

 https://search.aol.com/

 https://www.wolframalpha.com/

 https://archive.org/

 

SEO এর ক্ষেত্রে সবচেয়ে Valo সার্চ ইঞ্জিন হচ্ছে Google. তাই গুগলের বিভিন্ন এলগোরিদম সম্পর্কে জানা প্রয়োজন।গুগল যতবার

এলগোরিদম চেঞ্জ করে ততবার কিছু না কিছু পরিবর্তন লক্ষ করা যায়।সার্চ ইঞ্জিনের মধ্যে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দেওয়ার ফলে গুগল

অনেক কিছুই নিজ থেকে বুঝে নিতে পারে। Google সর্বশেষ এলগোরিদম আপডেট এর ফলে অনেক কিছুই চেঞ্জ হতে পারে। তাই

 

ভাল হয় সর্বশেষ আপডেটগুলো সম্পর্কে নূন্যতম কিছু ধারণা হলেও জেনে জানা থাকে।তবে গুগলের সব নিয়ম মেনে চললে এসব

আপডেট নিয়ে এত চিন্তার কিছুই নেই,সাইটে তেমন প্রভাব ফেলবে না।

 

ক্যারিয়ার হিসেবে এসইও ও ইনকামঃ

SEO Expert এর ভ্যালু বর্তমানে যেমন আছে ভবিষ্যতেও তেমনি থাকবে। যেকোনো Apps SEO সেবা দিতে পারবে। যতদিন

Website,Internet এর অস্তীত্ব থাকবে,ততদিন এর ভ্যালু থাকবে,বরং বেড়েই চলবে। SEO কে পেশা হিসেবে নিলে অনলাইনে

যেমন কাজের বিশাল পরিধি রয়েছে তেমনি অফলাইনেও বিভিন্ন কোম্পানির হয়ে কাজ করা যাবে। এক্ষেত্রে লোকাল SEO এর

পাশাপাশি ওয়ার্ল্ডওয়াইড এসইও নিয়ে কাজ করতে পারবেন।

যেসব জায়গায় কাজ করতে পারবেন-

 সাইট থেকে Bloging করে ট্রাফিক এনে এবং বিজ্ঞাপন দিয়ে ইনকাম করতে পারেন।

 অন্যের SEO সাইটে ‍ Friendly আর্টিকেল লিখে ইনকাম করতে পারেন।

 বিভিন্ন ই-কমার্স সাইটের সেল বাড়িয়ে প্রমোশনের কাজ করতে পারেন।

 বিভিন্ন এপসের এসইও সেবা দিয়ে বিনিময়ে প্রচুর অর্থ ইনকাম করতে পারেন।

 লোকাল কোম্পানির SEO সেবা দিতে পারেন।

 Affiliate marketing করতে পারেন।

 

Summery

যে কোন ওয়েব সাইটের জন্যই SEO একটি অপরিহার্য বিষয়। Web সাইটের ট্রাফিক বাড়াতে এসইও একটি অনিবার্য এবং গুরুত্বপূর্ণ কাজ। SEO জানতে চাইলে উপরের পয়েন্ট গুলোকে ভালো করে আয়ত্ত করতে হবে, এবং তা ক্রমাগত করে

যেতে হবে, সব সময় চেষ্টা করতে হবে হাতে কলমে কাজ করার ।তাহলেই একজন ভালো মানের SEO Expart হিসেবে

নিজেকে তৈরি করা যাবে ।

SEO TIPS

নিচে SEO সম্পর্কে কিছু টিপস দেয়া হল –

 ব্লাক হ্যাট এসইও না করার চেষ্টা করুন, এটা খুবই ক্ষতিকর বর্তমান সময় ।

 অন্যের ওয়েব সাইট থেকে কপি পেস্ট করবেন না, কপিরাইট এর কারণে সমস্যা হতে পারে।

 সঠিক স্থানে সঠিক সাইজের ফন্ট ব্যাবহার করুন, এতে সাইটের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায় এবং সম্পূর্ণ অপটিমাইজ হয়।

 সাইটে ভাল মানের কন্টেন্ট সাইটে রাখুন,

 সাইটে ভাল মানের ছবি ব্যাবহার করুন,

 অপ্রয়োজনীয় কন্টেন্ট, ছবি বা অন্য কোন কিছু ব্যাবহার করবেন না,

 

 বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ সাইট, ব্লগ বা ফোরাম এ নিয়মিত মানসম্মত পোস্ট করুন,

 নিয়মিত সঠিক কীওয়ার্ড রিসার্চ করুন,

 বিভিন্ন ব্রাউজার এবং ওয়েব ডিরেক্টরিতে আপনার ওয়েব সাইটের URL সাবমিশন করুন,

 ওয়েব সাইটের সাইটম্যাপ তৈরি করুন,

 সহজ এবং সাবলীল নেভিগেশন মেনু তৈরি করুন।

Related Posts

4 thoughts on “Seo করে কত টাকা আয় করা যায় | Seo এর কাজ শেখার উপায়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *