allah-ho-talar-doya-logo-photo-pic-allah

আল্লাহর ভালোবাসা ইসলামিক গল্প

আল্লাহর ভালোবাসা ইসলামিক গল্প

এক দেশে এক বাদশা ছিল। একদিন বাদশার হাত কেটে গেল। অনেক রক্ত ঝরল বাদশার হাত থেকে। সবাইতো বাদশাকে দেখতে গেল। গিয়ে সবাই দুঃখ করতেছে আহারে হুজুরের হাত কেটে গেছে। অনেক রক্ত ঝরেছে। কিছুক্ষণ পর উজির হাজির হলো ওখানে। উজির গিয়ে বাদশার হাত দেখে বললেন আল্লাহ যা করে মানুষের মঙ্গলের জন্যই করে। চিন্তা করবেন না বাদশা কিছুদিন পরেই সব ঠিক হয়ে যাবে। বাদশা বললেন উজির বলছে আল্লাহ যা করেন মঙ্গলের জন্যই করেন, আমার হাত থেকে এত রক্ত ঝরছে আর এটা নাকি আমার জন্য মঙ্গল। কিছুতেই মাথায় ঢুকছেনা। আগে আমি সুস্থ হয়ে নিই তারপর উজির বেটাকে দেখাবো মজা। কিছুদিন পর বাদশাহ সুস্থ হয়ে গেলেন। সুস্থ হয়ে সোজা উজিরের বাড়িতে গেলেন। গিয়ে বললেন উজির মশাই বাড়িতে আছেন

চলেন আমরা শিকার করতে যাব। এই বলে দুজনে শিকারের উদ্দেশ্যে রওনা হল। বাদশাহ উজির কে অনেক গভীর জঙ্গলে নিয়ে গেলেন। নিয়ে গিয়ে একটা পূর্ণ গর্তের ভিতর ফেলে দিলেন। আর বললেন ব্যাটা মজা বোঝ। এই বলে বাদশাহ ওখান থেকে দ্রুত চলে গেলেন। যেতে যেতে মনের ভুলে অন্য রাজ্যে চলে গেলেন। ওই রাজ্যের সৈন্যরা দেখে গ্রেফতার করে ফেললেন। গ্রেফতার করে রাজার কাছে নিয়ে গেলেন। বলল রাজামশাই আমাদের ঘোড়াচোর পেয়েছি একেবারে ঘোড়াসহ হাতেনাতে ধরেছি।রাজা বলল নিয়ে আসো চোরকে আমার কাছে। ওকে দেখে রাজা বলল তুমি কি জানো না আমার রাজ্যে চুরি করা অপরাধ। যে চুরি করবে তার শাস্তি হচ্ছে মৃত্যুদণ্ড। তোমাকে অবশ্যই শাস্তি ভোগ করতে হবে তুমি রাজার ঘোড়া চুরি করেছো। তখন বাদশা বললেন আমাকে ক্ষমা করবেন আমি চোর নই আমি পাশের রাজ্যের বাদশা। আমাকে ক্ষমা করবেন এই ঘোড়াটা আপনার আমি জানিনা এটা আমি এক লোকের কাছ থেকে কিনে নিয়েছি। সে আমার থেকে ঘোড়াটির জন্য নগদ অর্থ নিয়ে গেছে। আপনি আমাকে ক্ষমা করুন। আপনারা ঘোড়া রেখে দিন আর আমাকে যেতে দিন। তখন রাজা বললেন আমি আপনাকে এভাবে যেতে দিতে পারি না। আপনি যে পাশের রাজ্যের বাদশা তার প্রমাণ দেখান। তখন বাদশা বললেন এই যে আমার হাতের আংটি দেখুন আমার রাজকীয় পোশাক।

আল্লাহর ভালোবাসা ইসলামিক গল্প

তখন রাজা মেনে নিলেন সবকিছু দেখে যে ইনি আমার পাশের রাজ্যের বাদশা। তখন বললেন আপনাকে তো শাস্তি পেতেই হবে। কারণ আমার রাজ্যের আইন হচ্ছে যে চুরি করবে তাকে শাস্তি ভোগ করতেই হবে। আর যদি কেউ বলে আমি চুরি করিনি তাহলে সে চোরকে ধরে দিতে হবে। আপনি তো চোর ধরে দিতে পারবেন না আমি আপনার জন্য শাস্তি কিছুটা কমাবো এই বলে জল্লাদকে ডাকলেন। জল্লাদকে বললেন উনার শরীরে কোন কাটাছিঁড়া আছে নাকি দেখো। তখন জল্লাদ বললেন উনার হাতের আঙ্গুল কাটা। তখন রাজা বললেন ওই কাটা আঙ্গুলটা আবার কেটে দাও। তখন বাদশার আঙ্গুল কেটে দেওয়া হলো তারপর রাজা বললেন এখন আপনি আপনার রাজ্যে ফিরে যেতে পারেন। ওখান থেকে বের হয়ে বাদশা চিন্তা করতেছে আমিতো উজিরের সাথে অন্যায় করেছি। উজির তো ঠিকই বলেছিল আল্লাহ যা করেন বান্দার মঙ্গলের জন্যই করেন। আমি তো শুধু শুধু উজিরকে কষ্ট দিলাম। আমার হাতটা যদি ঐদিন না কাটতো তাহলে তো আজকে আমার নিশ্চিত মৃত্যুদণ্ড হত। আমি আগে উজিরের কাছে যাব। উজিরের বাড়ি গিয়ে বললেন উজির বাড়িতে আছেন। জি হুজুর ভিতরে আসেন। বাদশা উজিরের পাশে গিয়ে বসলেন। বললেন উজির সাহেব আপনি তো ঠিকই বলেছেন আল্লাহ যা করে বান্দার মঙ্গলের জন্যই করে। কিন্তু একটা বিষয় বুঝতে পারলাম না। আমার হাত কেটে গেছে তাই আমার জীবন বেঁচেছে। আপনাকে তো আমি কষ্ট দিলাম এখানে আপনার কি ভালো হলো।

আল্লাহর ভালোবাসা ইসলামিক গল্প

কি মঙ্গল হলো। তখন উজির বললেন হুজুর আপনার সাথে যদি আমি ওই রাজ্যে যেতাম তাহলে আমার নিশ্চিত মৃত্যু দণ্ড হতো আমার শরীরে তো কোন কাটা ছিল না। আপনি আমাকে এভাবে ফেলে না গেলে আমার নিশ্চিত মৃত্যু দণ্ড হতো। অতএব আল্লাহ যা করেন বান্দার মঙ্গলের জন্যই করেন। তাই আমি সব সময় বলি আলহামদুলিল্লাহ সমস্ত প্রশংসা আল্লাহ তাআলার যিনি জগৎসমূহের পালনকর্তা।

আরো পড়ুনঃ ব্যর্থ ভালোবাসা

Related Posts

50 thoughts on “আল্লাহর ভালোবাসা ইসলামিক গল্প

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *