২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বাংলা ২য় পত্র এ্যাসাইনমেন্ট (৩য় সপ্তাহ)

” আসসালামু আলাইকুম ”
আশা করি সবাই ভালো আছেন। আমিও ভালো আছি ” আলহামদুলিল্লাহ ”

আজ আমি আপনাদের ২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের এ্যাসাইনমেন্ট ( ৩য় সপ্তাহ) এর বাংলা ২য় পত্রের একটি নমুনা উত্তর দিব।

এ্যাসাইনমেন্ট,
ব- ফলা,ম- ফলা ও য- ফলার উচ্চারণ সূত্র এবং গদ্য ও পদ্য থেকে বাছাইকৃত ফলাযুক্ত শব্দের উচ্চারণ।

 

১. ব- ফলার উচ্চারণ সূত্র লিখ :

উচ্চারণ একটি বাচনিক প্রক্রিয়া। অঞ্চল, সময়, ব্যক্তি ও ভৌগোলিক সীমার ভিন্নতার কারণে উচ্চারণের ভিন্নতা হতে পারে।সময়ের বিবর্তনে বাংলা উচ্চারণের বেশকিছু পরিবর্তন ঘটেছে এবং বিভিন্ন কারণে উচ্চারণের বৈচিত্র্য সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু প্রত্যেক ভাষারই ধ্বনি বিজ্ঞানসম্মত একটি মান বা প্রমিত উচ্চারণরীতি আছে। একটি ভাষাকে ধ্বনিবিজ্ঞানের সূত্র অনুসারে বাগযন্ত্রের সাহায্যে সুন্দরভাবে রূপায়নের নাম উচ্চারণ আর এই রীতিকেই উচ্চারণরীতি বলে।

ব- ফলার উউচ্চারণ সূত্র নিম্নে দেওয়া হলো:

১. শব্দের আদিতে ( অর্থাৎ – শুরুতে) যুক্তবর্ণ ‘ব’ থাকলে সে ‘ব’ উচ্চারিত হয় না। যেমন: শ্বাস,দ্বার,ধ্বনি।

২. শব্দের মধ্যখানে অথবা অন্তে (শেষে) যুক্তবর্ণ হিসেবে ‘ব’ থাকলে উক্ত বর্ণ দ্বিত্ব হয়। ( দ্বিত্ব অর্থ দুই বার) অর্থাৎ দইবার উচ্চারিত হয়। যেমন: বিশ্বাস, নিস্ব বিশ্ব।

৩.গ/ দ/ ব/ ম এর পর যদি ব- ফলা হয় তাহলে উচ্চারণ বহাল থাকে। যেমন : দ্বিগবলয়, উদ্বোধন,আব্বা, সম্বর্ধনা।

৪.ব- ফলা অন্য কোনো যুক্ত ব্যঞ্জনের সঙ্গে যুক্ত হলে ব- এর উচ্চারণ অনুচ্চারিত থাকে।যেমন: দ্বন্দ্ব, সান্ত্বনা।

 

 

২.পূর্ণবিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির গদ্য ও কবিতা থেকে ব- ফলা যুক্ত শব্দ বাছাই করে উচ্চারণ লিখ।

নিম্নে পূর্ণবিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির গদ্য ও কবিতা থেকে ব- ফলা যুক্ত শব্দ দেওয়া হলো:

মূলশব্দ                                    উচ্চারণ

সম্বন্ধ                                 শম্ বন্ ধো
অদ্বিতীয়                            অদ্ দিতিয়ো
সরস্বতী                              শরোশ্ শোতি
নিঃশ্বাস                              নিশ্ শাশ
দাসত্ব                                 দাশোত্ তোও
শ্বাপদ                                 শাপদ্
জ্বালা                                 জালা
স্বাগত                                শাগতো
ঐশ্বর্যবান                          ওইশ্ শোর্ জোবান
জয়ধ্বনি                           জয়োদ্ ধোনি
দায়িত্ব                               দায়িত্ তো
উদ্বাত্তু                               উদ্ বাস্ তু
তত্ত্বাবধান                         তত্ তাবধান্
আহ্বান                            আওভান্
স্বল্প                                  শল্ পো

৩.ম- ফলার উচ্চারণ সূত্র লিখ।

নিম্নে ম- ফলার উচ্চারণ সূত্র দেওয়া হলো:

১.শব্দের শুরুতে ম- ফলা উচ্চারণ হয় না।যেমন: স্মৃতি, শ্মশান।

২. ( ম- ফলার উচ্চারণ না হলে চন্দ্রবিন্দু ( ঁ ) হয়।)
শব্দের মধ্যে বা অন্তে (শেষে) ম- ফলার উচ্চারণ দ্বিত্ব (দুইবার) হয়।যেমন: গ্রীষ্ম, ভষ্ম।

৩.(ম- ফলার উচ্চারণ না হলে চন্দ্রবিন্দু ( ঁ ) হয়।)
গ/ন/ম/হ এর সাথে ম- ফলা থাকলে, ম- ফলার উচ্চারণ বহাল থাকে।যেমন: যুগ্ম, আম্মা, উন্মেষ, ব্রাহ্মণ।

 

৪.পূর্ণবিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির গদ্য ও কবিতা থেকে ম- ফলার যুক্ত শব্দ বাছাই করে উচ্চারণ লিখ।

নিম্নে পূর্ণবিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির গদ্য ও কবিতা থেকে ম- ফলা যুক্ত শব্দ দেওয়া হলো:

মূলশব্দ                                      উচ্চারণ

সম্মার্জনা                           শম্ মারজোনা
উন্মনা                                উন্ মনা
আত্নপ্রকাশ                         আত্ তোঁপ্রোকাশ্
অকস্মাৎ                            অকোশ্ শাঁত
সবিস্ময়                             শোবিশ্ ময়
আত্নহত্যা                            আত্ তোঁহোত্ তা
সম্মুখ                                 শম্ মুখ
আজন্ম                              আজন্ মো
স্মৃতি                                 সৃতি
স্মরণ                                শঁরোন
ব্রাহ্মণ                               ব্রাম্ হোন
ষাণ্মাসিক                          শান্ মাশিক্
ব্রাহ্মপুত্র                            ব্রোম্ হোপুত্ ত্রো
গ্রীষ্ম                                  গ্রি্ শশোঁ

 

৫.য- ফলার উচ্চারণ সূত্র লিখ।

য- ফলার উচ্চারণ সূত্র নিম্নে দেওয়া হলো:

১.শব্দের আদিতে য- ফলা থাকলে ‘অ্যা’ মতো উচ্চারণ হবে।যেমন: ব্যথা, ব্যাধ।

২.শব্দের শুরুতে য- ফলা আছে এবং পরবর্তী বর্ণের সঙ্গে ‘ই- কার ‘বা ‘ঈ- কার ‘আছে তখন সেই য- ফলার উচ্চারণ ‘এ- কারের’ মতো হবে। যেমন: ব্যক্তি, ব্যতীত।

৩. শব্দের মাঝে বা শেষে য- ফলা থাকলে সেই বর্ণের সঙ্গে থাকবে ঐ বর্ণের দ্বিত্ব উচ্চারণ হবে। যেমন: বন্যা,মূখ্য।

৬. পূর্ণবিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির গদ্য ও কবিতা থেকে য- ফলা যুক্ত শব্দ বাছাই করে উচ্চারণ লিখ।

পূর্ণবিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির গদ্য ও কবিতা থেকে য- ফলা যুক্ত শব্দ বাছাই করে নিম্নে দেওয়া হলো:

মূলশব্দ                                      উচ্চারণ

অধ্যক্ষ                               ওদ্ ধোক্ খো
ভবিষ্যৎ                              ভোবিশ্ শত
পদ্য                                   পোদ্ দো
বৈষাদৃশ্য                            বোইশাদৃশ্ শো
ব্যাকরণ                             ব্যাকরোণ্
প্রত্যক্ষ                               প্রোত্ তোক্ খো
লাবণ্য                                লাবোন্ নো
ঐকমত্য                            ওইকোমোত্ তো
ব্যবহার                              ব্যাবোহার্
ব্যতীত                               ব্যাতিতো
ব্যস্ত                                   ব্যাস্ তো
বিদ্যা                                 বিদ্ দা
সহ্য                                   শোজ্ ঝো
প্রত্যেক                             প্রোত্ তেক
শয্যাগত                            শোয্ যাগত
অসাধ্য                              অশাদ্ ধো
ভাগ্য                                 ভাগ্ গো
মিথ্যা                                মিত্ থা
দিব্যি                                দিব্ বি
ব্যবস্থা                              ব্যাবোস্ থা
ধন্য                                  ধোন্ নো

 

Related Posts

5 thoughts on “২০২২ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বাংলা ২য় পত্র এ্যাসাইনমেন্ট (৩য় সপ্তাহ)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *