মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার কার্যকরী পদ্ধতি

মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার কার্যকরী পদ্ধতি।

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রতি ক্ষেত্রেই মোবাইলের ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের ফোন গুলো একজন অনেক কাজে ব্যাবহার করা হয় তাই চার্জ অনেক বেশি প্রয়জন হয়। কিন্তু আমরা সব সময় চার্জ দিয়ে কাজ করতে পারি না বা সব সময় আমাদের কাছে চার্জার বা  চার্জ দেবার কোন ব্যবস্থা থাকে না। তাই আমরা সবাই বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হয়ে পরি কারন প্রতিনিয়ত আমাদের বিভিন্ন ইম্পরট্যান্ট কল মেসেজ এবং বিভিন্ন কাজে ফোনের ব্যবহার হয়।

তাই আমরা ফোনে বাপ-বেটা এতে বেশিক্ষণ চার্জ রাখার জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ ট্রিক্স সম্পর্কে অবগত হব।

1. খুব দ্রুততার সাথে চার্জ দেওয়ার জন্য অবশ্যই আমাদের ফোনটিক ফ্লাইট মোড অফ করে তারপরে চার্জ দিলে খুব দ্রুত তার সাথে আমাদের ফোনের চার্জ হয়ে যায়। বিশ্বাস না হলে নিজেই একবার ট্রাই করে দেখুন আপনার ফ্লাইট মোড অর্থাৎ আপনার সিম বন্ধ রেখে ফোনটি চার্জ দিলে খুব দ্রুত তার সাথে চার্জ হয়ে যায়।

2. চার্জে লাগিয়ে ফোন ইউজ না করা: যখন ফোনে চার্জ দেওয়া হবে ততক্ষণ এর মধ্যে ফোন কখনো ইউজ করা যাবে না কারণ ফোনে চার্জে লাগিয়ে ফোন ইউজ করলে ফোনের ব্যাটারির ক্ষমতা কমে যায় এবং ফোনে বেশিক্ষণ চার্জ ধরে রাখতে পারেনা তাই খুব অল্প সময়ের মধ্যে চার্জ চলে যায় এবং আমাদের ফোনে ব্যাটারি তে সমস্যা হয়। এবং অনেক সময় দেখা যায় যে ফোনে চার্জ দেওয়া অবস্থায় ফোন ইউজ করলে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হয়।

3. ফোন বন্ধ করে চার্জ লাগানো:যদি কোন প্রয়োজন না থাকে বা কোন রকমের সমস্যা না থাকে তাহলে যতক্ষণ ফোনে চার্জ দেওয়া হবে ততক্ষণ ফোনটি অফ করে চার্জ দিলে ফোনের চার্জ খুব দ্রুত হয় এবং বেশিক্ষণ স্থায়ী থাকে।

4. নিদৃষ্ট সময় ফোন চার্জে লাগানো:ফোন কি চার্জে লাগানোর সময় অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে যাতে 20 পার্সেন্ট হওয়া মাত্রই ফোনটা চার্জে লাগানো হয়। এতে ব্যাটারির দীর্ঘদিনের স্থায়ী হয় এবং ব্যাটারীতে কোন রকমের সমস্যা হয় না।

5. সম্পূর্ণ চার্জ হওয়ার আগেই ফোন চার্জ থেকে খুলে ফেলা:সার্চ করার সময় অবশ্যই একটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে যে যাতে ফুল চার্জ না হওয়া পর্যন্ত অর্থাৎ 100% পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত ফোন খোলা যাবে না। যদি কিছুক্ষণ চার্জ হওয়ার পর আবার খুলে ইউজ করা হয় তারপর আবার চার্জে লাগানো হয় তাহলে ব্যাটারির অনেক সমস্যা হয় পরবর্তীতে ব্যাটারি নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই যত সম্ভব ফোনকে সম্পূর্ণ অর্থাৎ 100% চার্জ নেওয়া পর্যন্ত ইউজ করা যাবে না।

6.  চার্জ থেকে খুলে ফোন ব্যবহার করা : একটা কথামাথায় রাখা ভালো 100% চার্জ হয়ে যাওয়ার পরে সাথে সাথে ফোনটি ব্যবহার করা যাবে না এতে ব্যাটারির উপর প্রভাব এবং পণ্যের উপর প্রভাব পড়ে ফোন গরম হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই অবশ্যই কিছুক্ষণ সময় পরে ইউজ করা প্রয়োজন যাতে ব্যাটারির কোয়ালিটি ভালো থাকে এবং ফোন গরমের হাত থেকে রক্ষা পায়।

7. চার্জ না ফুরানোর আগেই চার্জ দেওয়া:একটি গুরুত্ব জিনিস মনে রাখা ভাল ব্যাটারি ভালো রাখার জন্য যদি ফোনে 80 পার্সেন্ট চার্জ থাকে তখন যদি চার্জে লাগিয়ে 100% করে আবার কিছুক্ষণ ইউজ করার পরে চার্জে লাগানো হয় অর্থাৎ  সম্পূর্ণ ফুরিয়ে না যাওয়া পর্যন্ত ইউজ না করে অর্ধেক শেষ হওয়ার মধ্যেই আবার চার্জে লাগালে আস্তে আস্তে ব্যাটারির শক্তি কমে যায়। তাই অবশ্যই সার্চ যখন সর্বনিম্ন 20% হয়ে যাবে তখন ফোনটি চার্জ দিতে হবে এতে ব্যাটারির কোয়ালিটি ভালো থাকে।

8. উত্তপ্ত এবং গরমে স্থানে মোবাইল ব্যবহার করা:ফোন ইউজ করার সময় অবশ্যই একটি ঠান্ডা এবং মনোরম পরিবেশে ইউজ করা প্রয়োজন কারণ যদি একটি উত্তপ্ত গরম স্থানে বসে ফোন ইউজ করা হয় তাহলে ফোনের চার্জ খুবই দ্রুততার সাথে শেষ হয়ে যায় এবং ফোন খুব দ্রুত গরম হয়ে যায়। তাই যত সম্ভব ফোন নিরিবিলি এবং ঠাণ্ডা পরিবেশে ইউজ করা ভালো।

9. মিনিমাইজ করে বা একসাথে অনেকগুলো এপ্লিকেশন ব্যবহার করা:একটা ভুল আমরা সবাই করে থাকি সেটা হলো আমরা যখন ফোন ইউজ করি তখন একসাথে অনেকগুলো কাজ করে থাকি যেমন ফেসবুক ব্যবহার করি সাথে সাথে ম্যাসেঞ্জার ইউজ করি এবং সাথে সাথে ইউটিউব ব্যবহার করি অর্থাৎ মিনিমাইজ করে করে প্রয়োজনের তাগিদে সবগুলো একসাথে ইউজ করি সে ক্ষেত্রে দেখা যায় দিন শেষে খুব দ্রুত চার্জ পড়ে যায় কারণ ব্যাকগ্রাউন্ডে ওই অ্যাপ্লিকেশনগুলো রান হতে থাকে ইউজ করা হয় না তবুও যতক্ষণ পর্যন্ত মিনিমাইজ করে ব্যাকগ্রাউন্ড রাখা হয় ততক্ষণ পর্যন্তই অ্যাপ্লিকেশনগুলো চার্জ গ্রহণ করতে থাকে। তাই যথা সম্ভব দুই একটি অ্যাপ্লিকেশনের সাথে ইউজ করা ভালো এতে করে চার্জ এর স্থায়িত্ব বৃদ্ধি পায়।

10. ভিন্ন ভিন্ন চার্জার দিয়ে চার্জ দেওয়া:একটা ভুল আমরা আমি সেই করে থাকি সেটা হলো অন্যের চার্জার বা আমার চার্জার অন্যকে অন্যের ফোনে অর্থাৎ নির্দিষ্ট চার্জার অন্য ফোনে ইউজ করে বা অন্য অন্য ফোনের চার্জার নিজের মোবাইলে ইউজ করে আমার ফোন চার্জ দিয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে আমাদের কিছুক্ষণের জন্য স্বস্তি হলো সেটা আমাদের ব্যাটারির উপরে খুবই খারাপ প্রভাব ফেলে এতে করে আমাদের ব্যাটারি খুব দ্রুত শক্তি হারিয়ে ফেলে এবং নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাই যথা সম্ভব নিজের চার্জার ইউজ করে ফোনে চার্জ দেওয়া উচিত।

 

মোবাইল এবং ব্যাটারি সম্পর্কিত যে কয়েকটি বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে আশা করি সকল বিষয়গুলো আপনার খুবই দরকারী এবং দৈনন্দিন জীবনে গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলবে তাই যদি আপনার এই আর্টিকেলটি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে সেটা উপস্থাপন করবেন এবং আমাদের দ্বিতীয় আর্টিকেল লেখার জন্য অনুপ্রেরণা সৃষ্টি করে দিবেন।

ধন্যবাদ।

Related Posts

11 thoughts on “মোবাইলের ব্যাটারি ভালো রাখার কার্যকরী পদ্ধতি।

    1. থ্যাংক ইউ আপনার মূল্যবান মন্তব্য করার জন্য আমরা অনেক অনুপ্রাণিত হই এবং আর্টিকেল লেখার জন্য ইম্প্রেস্ট হয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *