ধরুন আপনি গোসল করে এলেন। আপনি মাথা ঝুঁকিয়ে নিলেন, কিছু পানি ঝরে পড়ছে। যদি না পড়ে তাহলে বুঝবেন আপনার মাথায় ডার্ক ম্যাটার আছে। কারণ আমাদের গ্যালাক্সিতে যে পরিমাণ দৃশ্যমান ম্যাটার আছে আমাদের গ্যালাক্সি এসব ধরে রাখতে পারবে না। কারণ গ্যালাক্সিতে কোটি কোটি তারা আছে। তাই এদের ধরে রাখার কথা না। আরও জিনিস যেমন গ্রহ,উল্কা,ধূলিকণা আরও চেনা জিনিস আছে,এদের ধরে রাখার কারণ কি?

ডার্ক ম্যাটার:

আসসালামু আলাইকুম, । আমি প্রাচী চৌধুরী ।

ধরুন আপনি গোসল করে এলেন। আপনি মাথা ঝুঁকিয়ে নিলেন, কিছু পানি ঝরে পড়ছে। যদি না পড়ে তাহলে বুঝবেন আপনার মাথায় ডার্ক ম্যাটার আছে। কারণ আমাদের গ্যালাক্সিতে যে পরিমাণ দৃশ্যমান ম্যাটার আছে আমাদের গ্যালাক্সি এসব ধরে রাখতে পারবে না। কারণ গ্যালাক্সিতে কোটি কোটি তারা আছে। তাই এদের ধরে রাখার কথা না। আরও জিনিস যেমন গ্রহ,উল্কা,ধূলিকণা আরও চেনা জিনিস আছে,এদের ধরে  এরা ছিটকে পড়ছে না কেন?এত গ্র্যাভিটি পাচ্ছে কোথা থেকে? উত্তর ডার্ক ম্যাটার। এর নাম ডার্ক ম্যাটার কেন? এরা আলো প্রতিফলিত করেনা এদের দেখাযায় না ।যদি আলো এর পাশ দিয়ে যায় তাহলে বাঁকা পথে যায়।
আমরা জানি ডার্ক ম্যাটার কোনো মেঘ,ধূলিকণা না ।ডার্ক ম্যাটার অ্যান্টি ম্যাটার না । অ্যান্টি ম্যাটার,সাধারণ ম্যাটারের সাথে লাগলে গামা রে নির্গত করে। ডার্ক ম্যাটার ব্ল্যাক হোল না। ব্ল্যাক হোল টেনে নেয় আলো ও শব্দ। কিন্তু ডার্ক ম্যাটার আলোকে বাকা দেয় এবং এক্সট্রা গ্র্যাভিটি দেয়।

আমরা ডার্ক ম্যাটারের ৩টি বিষয়ে নিশ্চিত:
১. ডার্ক ম্যাটারে অনেক অজানা জিনিস আছে।
২.গ্র্যাভিটি এর সাথে ইন্টারেকশন আছে।
৩.মহাকাশে অনেক গুলো ডার্ক ম্যাটার আছে।

ডার্ক ম্যাটারটা কি তাহলে? ডার্ক ম্যাটার এক্সোটিক পার্টিকেলস দিয়ে তৈরি। এ থেকে আমরা তেমন কিছু জানি না। কিন্তু ডার্ক ম্যাটারের সাথে তারা ধরে রাখার সম্পর্ক কি?

তারাদের ধরে রাখার কারণ:

আমাদের যে চাঁদ আছে তা ঘুরে। কারণ কিছু কোটি বছর আগে পৃথিবীর সাথে একটি গোলকের ধাক্কা লেগেছিল। সেখানে সেটা পৃথিবীর অভিকর্ষে আটকা পড়ে। সেটা আজকের চাঁদ। যদি পৃথিবীর ভর বেশি হত তাহলে চাঁদকে বেশি জোরে ঘুরতে হত। আর যদি পৃথিবীর ভর কম হত তাহলে চাঁদ মহাকাশে চলে যেত। তাই উনিশ ষাটে বিজ্ঞানীরা গ্যালাক্সি দেখতে গিয়ে তারাদের ভর মাপলেন। তারাদের উজ্জ্বলতা ও আরও হিসাব নিকাশ করে ভর নির্ণয় করা যায়। তারা দেখলেন তারা যে গতিতে ঘুরে তার চেয়েও বেশি জোরে ঘুরে। তার মানে কি?যেহেতু কোনো গ্যালাক্সি তারাদের ধরে রেখেছে নিশ্চয়ই সে গ্যালাক্সির ভর বেশি। তাই তারা ছুটে যায় না। যেমন আপনার পানির ঘটনার মত। ওই গ্যালাক্সিতে ভারী কিছু আছে যা দেখা যায় না। আমরা জানি গ্যালাক্সিতে ডার্ক ম্যাটার আছে। একটি সুপার মেসিভ ব্ল্যাক হোল কয়েকটি তারা ধরে রাখতে পারে। কিন্তু সে কোটি কোটি তারাকে ধরে রেখেছে। নিশ্চয়ই সে বড় হতে পারে। তার ধ্বংস বড় হতে পারে।কিন্তু যখন একটি গ্যালাক্সি অপর গ্যালাক্সির সাথে মহাকর্ষের কারণে সংঘর্ষ হয়, তখন তার মধ্যে বড় বিষ্ফোরণের ছবি দেখা যায় নি। (ছবি:১)। তার মানে দুটো গ্যালাক্সির ডার্ক ম্যাটারের ভাণ্ডার একে অপরের ভিতর দিয়ে চলে গেছে। তাদের অদৃশ্য ডার্ক ম্যাটার ধরা পড়েনি। আমাদের যে চেনা বস্তু আছে তা ৫%। ডার্ক ম্যাটার ২৭%। ডার্ক এন্যার্জি ৬৮%।কেউ যদি এ দুটি আবিষ্কার করে তাহলে আমরা মহাকাশের ১০০% চেনা বস্তু হবে।কিন্তু এখানো আমরা কিছু জানি

প্রাচী চৌধুরী

 

Related Posts

35 thoughts on “ডার্ক ম্যাটার

  1. কমেন্ট করে উৎসাহ দেন।যেনো আরো নতুন কিছু লিখতে পারি

  2. ভাই কমেন্ট করার লোক নাই মনে হয়

  3. অনেক গুছিয়ে লিখছেন। এবং ইনফরমেটিভ ছিলো। অনেক অজানা তথ্য জানতে পারলাম।

  4. নতুন কিছু জানতে পারলাম। খুব সুন্দর হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *