coconut water

ডাবের পানি খাওয়ার উপকারিতা

নারিকেল মানেই রহস্যময় একটা ফল। নারিকেলের অপরিপক্ক অংশই ডাব। ডাবের স্বছ পানি সরাসরি নারিকেল থেকে পাওয়া যায় বলে ডাবে কোনো প্রকার কৃত্রিমতার ছোয়া থাকে না। এবং নেই কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। এর স্বাস্থ্য উপকারিতাও অন্যান্য ফলের তুলনায় বেশি। ডাবের পানির গুণাগুণ ও বেশ কিছু উপকারিতা নিয়েই আজকের আলোচনা।

ডাবের পানি পানের উপকারিতাঃ

  • নিয়মিত ডাবের পানি পানে কোষ্ঠকাঠিন্য (মলাশয়ের মল শুষ্ক বা কাঠিন্যের কারণে পরিষ্কার না হওয়াকেই কোষকাঠিন্য বলে) বা কিডনি সংক্রান্ত রোগ প্রতিরোধ হয়।
  • রক্তে হিমোগ্লোবিন তৈরি করা আয়রনও ডাবের পানিতে যথেষ্ট পরিমাণে থাকে।
  • ডাবের পানিতে ক্যালসিয়াম, ম্যাঙ্গনেসিয়াম, পটাসিয়াম ও খনিজ লবণ উচ্চ মাত্রায় রয়েছে। যা হৃৎপিণ্ডের কার্যক্রম সচল রাখতে সহায়তা করে।

ডাবের পানি শুধু শরীর ঠান্ডায় রাখে না এর সাথে যৌন ক্ষমতাও বাড়ায়। তবে কচি ডাবের পানি যৌন আকাঙ্খা বাড়াতে বেশ সহায়তা করে। নিয়মিত ডাবের পানি খেলে পুরুষাঙ্গের দৃঢ়তা বৃদ্ধি পায়। তবে শুধু পুরুষদের ক্ষেত্রেই না ষাটোর্দ্ধ মহিলাদের উত্তেজনা বাড়াতেও বেশ ভালো কাজ করে।

coconut water

  • ডাবের পানি খেলে শুক্রাণু বেড়ে যায়।
  • ডাবের পানি মাংসপেশি এবং স্নায়ুর কার্যক্ষমতা সচল রাখার উপাদান পটাসিয়ামে সমৃদ্ধ।
  • ডাবের পানি শুধু কিডনি সচল রাখতে নয় হার্ট অ্যাটাক রুখতেও দারুণ কাজ করে।
  • গরমে প্রশান্তির জন্য ডাবের পানির জুরি নাই।

ডাবের পানি গ্যাসের প্রাকৃতিক ঔষধ হিসেবে কাজ করে। নিয়মিত ডাবের পানি পানে গ্যাসজনিত বিভিন্ন প্রকার পেঠের রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

শারীরিক চাহিদা মেটাতে অনেকের কাছে সেরা পছন্দ বিভিন্ন প্রকার ফলের রস। কিন্তু ডাবের পানি ফলের রসের চেয়ে বেশি পুষ্টিগুণে ভরা। এই কারণে ডায়াবেটিস রোগীদের বেশ উপকার হয়।

কিভাবে ফেসবুক আইডি ভেরিফাই করবেন?|| ফেসবুক আইডি ভেরিফাই || ফেসবুক একাউন্ট ভেরিফাই Best guid 2022✔️

  • ডাবের পানিতে বিদ্যমান বেশকিছু উপাদান ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস মারতে সহায়তা করে।
  • ত্বকের জন্য বেশ উপকারী এই ডাবের পানি ত্বকের বোটিকা হিসেবে কাজ করে।
  • বদহজমেও কাজ করে এই কোমল পানি।
  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ, ব্লাড সারকুলেশন ভালো রাখে।
  • ডাবের পানি গ্রোথ বাড়াতে সাহায্য করে।
  • ঘন ঘন বমি হলে ডাবেব পানি ঔষধ হিসেবে অসাধারণ কাজ করে।
  • শরীরের জন্য বেশ উপকারী ভিটামিন সি ডাবের পানিতে প্রচুর পরিমাণে রয়েছে
  • কিডনির পাথর দূর করতে ডাবের পানি ঔষধ হিসেবে কাজ করে।
  • ডাবের পানির অন্য আরেকটি গুণ হলো এটি চুল বৃদ্ধি ও খুশকি দূর করে।

শরীরের কার্যক্ষমতা বাড়ানোর জন্য প্রাকৃতিক ফলমূলের বিকল্প নাই। তাছাড়া বর্তমান সময়ে সবকিছুতেই ভেজালের ছড়াছড়ি। যেকোনো ফলে ফরমালিন ব্যবহার করে টাটকা ও সতেজ করে রাখা হয়। ফরমালিন এমন এক রাসায়নিক তরল উপাদান যেখানে বিষাক্ত পদার্থ মিথানল ফরমালিনে ৪০ ভাগ দ্রবণীয় অবস্থায় থাকে। ফরমালিন খাদ্য পরিপাকে বাধা দেয়, পাকস্থলীর ব্যাপক ক্ষতি করে, যকৃতের অ্যানজাইম নষ্ট করে এবং কিডনির কোষ ধ্বংস করে দেয়। এর ফলে গ্যাস্ট্রিক আলসার বাড়ে, লিভার ও কিডনির নানান রকম জটিল রোগের দেখা দেয়।

তাছাড়া শরীরের দূর্বলভাব কমানোর জন্য আমরা স্যালাইন খেয়ে থাকি। কিন্তু আর্টিফিশিয়াল নিউট্রিয়েন্টস মানুষের শরীরে ঠিকমত ইউটিলাইজ করতে পারে না। অন্যদিকে ডাব প্রাকৃতিক এবং মানুষেরা প্রাচীনকাল থেকেই ডাব খেয়ে আসছে তাই মানবদেহ ডাবের পুষ্টি পুরোপুরি কাজে লাগাতে পারে। তবে স্যালাইন যে খাওয়া যাবে না তেমন কিছু না। তবে সামর্থ্য থাকলে অবশ্যই স্যালাইন এর বদলে ডাব খাওয়া ভালো। সর্বোপরি কচি ডাব বা নারিকেলের পানির উপকারীতা অনেক। শরীর সর্বদা তরতজা রাখতে ডাবের পানি খাওয়ার বিকল্প নাই। গ্রীষ্মের তীব্র গরম থেকে বাঁচতে আমরা ডাব বেশি খাই। তবে সারাবছরই ডাব পাওয়া যায় এবং খাওয়াও যায়। বেশি বেশি করে ডাব খাওয়া উচিত। লেখাটি পড়ে ভালো লাগলে লাইক, কমেন্ট আর শেয়ার করে বন্ধুদের জানিয়ে দেন। আর কোনো মন্তব্য থাকলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানান।

Related Posts

3 thoughts on “ডাবের পানি খাওয়ার উপকারিতা

  1. ডাবের পানি শরীরের immunity বৃদ্ধি করে। তবে যাদের শরীরে পটাসিয়াম বেশি তাদের জন্য ক্ষতিকর !

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *