টাকার কাছে ভালোবাসা মূল্যহীন।

টাকা ছাড়া ভালোবাসা হয় না,হ্যা সত্যি এটাই,টাকা টাই প্রধান। সবারই মনে অনেক ইচ্ছে থাকে ঈদ নিয়ে। ঈদের দিন কতো আনন্দ করবে,কার সাথে সময় কাটাবে,এতো সব ভাবনা,যা শেষ করা যায় না। তার মধ্যে যদি থাকে গার্লফ্রেন্ড, তাহলে তো কথাই নেই। তার, সাথে সময় কাটাতে পারা মানে,ঈদের চাঁদ কে হাতে ধরার থেকে ও বেশি মনে হয়।কিন্তুু,সেই কপাল কি আর  আমার আছে!কতো বল্লাম, ঈদের দিন একটু সময় নিয়ে দেখা করবা,কিন্তুু কে শোনে আমার কথা। আসলে,তার তো আর আমাকে প্রয়োজন নেই। তার প্রয়োজন টাকাওয়ালা ছেলে,যার সাথে দেখা করতে গেলে মোটা সালামী পাবে।আমার তো আর টাকা পয়শা নেই।তাই আমার মূল্যটা যেন দিন এর দিন কমে যাচ্ছে।কোন কিছুর বিনিময় দেখা করলো না আমার সাথে  ঈদের দিন। অথচ,৩ বছর আগে কিন্তুু,প্রপোজ সেই করেছিলো আমাকে।আমিই তাকে বারবার ফিরিয়ে দিয়েছিলাম।তার বান্ধবীদের সাহায্য নিয়ে বারবার আমাকে তার দিকে লক্ষ্য করায়,সে আমাকে ছাড়া বাঁচবে না,আমাকে ছাড়া তার ঘুম আসে না, আমাকে ছাড়া কিছুই ভাবতে পারে না। ৩ বছর পার হতেই সেই মেয়ে হিসেব করে নিলো,যে টাকার দাম বেশি।তাই, আজ আমি তার কিছুই না।অনেক কষ্টের পর রাজি হলো ঈদের পরের দিন দেখা করবে।আমি তো মহা খুশি।তার দেখা পাব ভেবেই।

তাই, ঈদের পর দিন, আমার ভালবাসার মানুষটার সাথে দেখা করতে গিয়েছিলাম। আমার বাড়ি থেকে তার বাড়ির দূরত্ব প্রায় ৬৫ কিলোমিটার। পকেটে ছিল ২৭৬ টাকা, সকাল বেলা বের হওয়ার সময় আম্মুর থেকে নিলাম ৫০০ টাকা, মোট ৭৭৬ টাকা নিয়ে রওনা দিলাম প্রিয় জনের উদ্দেশ্য। লক ডাউন তারউপর ঈদ গাড়ি ভাড়া এমনিতেই বেশি, যাওয়ার সময় তার জন্য একটা রিং ও কিনলাম, রেষ্টুরেন্টে বসে খাওয়া দাওয়া শেষ করে বিল দিয়ে যখন চলে আসব সে জোর করতেছে তাকে সেলামী টাকা দিতে, আমি বললাম সোনা এইবার নতুন টাকা আনতে পারি নি, আমি তোমাকে পরে পাঠিয়ে দিব, সে মানতে নারাজ, আমার পকেট মানিব্যাগ চেক করে পেল মাত্র ২৫৬ টাকা, সেখান থেকে ১০০ টাকা নিয়ে নিল। অথচ আমার সেই ভালবাসার মানুষটা এটা জানত ওখান থেকে আমার বাড়িতে আসতে খরচ কমপক্ষে ১৮০ টাকা। তারপর একটা ফ্রেন্ড থেকে বিকাশে ৫০০ টাকা নিয়ে মাঝপথে লাঞ্চ করে দিনশেষে বাড়িতে ফিরে দেখি তার একটা ছেলে ফ্রেন্ড ফেইসবুকে প্রোফাইল আপলোড দিল তার সাথে, উপরে লিখা ছিল With My Friend. আর ৪ ঘন্টা আমার সাথে থেকে একটা ছবি তুললো না, আগে আমি এফবিতে ছবি দিতে চাইলে বলত ওর অনেক প্রবলেম হবে। কিন্তু ফ্রেন্ডের বেলায় হয় নি। তিন বছরের রিলেশনে তাকে অনেক কিছু দিছি আমি কিন্তু কখনো কিছু পাইনি, এক পয়সারও কিছু পাইনি, আর আমি পাওয়ার আশাও করিনি। দুপুর একটায় তাকে বিদায় দিয়ে আমি ঠিকভাবে বাড়িতে ফিরতে পারলাম কিনা বা রাস্তায় লাঞ্চ করতে পারলাম কিনা সে একটা ফোন দিয়ে জিজ্ঞেস করার প্রয়োজন মনে করে নি। তারপর রাত ১২ঃ৪৬ মিনিটে একটা মিসকল দিয়েছিল সে আর আমি দুুই ফোটা চোখের জল ফেলে ঘুমিয়ে গেলাম। দিনশেষে আমি বিশ্বাস করতে বাধ্য হলাম টাকা ছাড়া ভালবাসা হয় না। কিন্তু এটা মানতে পারলাম না যে দায়িত্ব কি শুধু ছেলেদের থাকে?

তিন বছরের সম্পর্কে হাজার বার ঝগড়া হইছে। বারবার ব্রেকআপ হওয়ার পরও আমি সব ঠিক করে নিতাম। তাকে কখনো হারাব কল্পনাও করতে পারি না, ভাবতেই বুকের ভিতর পুড়ে যায়। নিজের চেয়েও বেশি ভালবাসি তাকে। কিন্তু অবহেলা গুলো আর সহ্য করতে পারছি না, তাকেও বলতে পারছি না, কারণ বলে শুধু ঝগড়া ছাড়া আর কিছুই হবে না।

এখন আমার কি করা উচিত? আমি ভালবাসার বিনিময়ে অবহেলা আর নিতে পারছি না। মানসিক ভাবে ভারসাম্যহীন হয়ে যাচ্ছি। প্লিজ ভাইয়া আপুরা একটা সুপরামর্শ দিয়ে উপকার করবেন প্লিজ।

Related Posts

8 thoughts on “টাকার কাছে ভালোবাসা মূল্যহীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *